1. admin@ritekrishi.com : ritekrishi :
  2. ritekrishi@gmail.com : ritekrishi01 :
বানিয়ে নিন টবের জন্য ভালো মানের মাটি তৈরির পদ্ধতি - Rite Krishi
বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ০৯:৪১ পূর্বাহ্ন

বানিয়ে নিন টবের জন্য ভালো মানের মাটি তৈরির পদ্ধতি

  • আপডেটের সময় : বুধবার, ২৪ আগস্ট, ২০২২
  • ৮৮ পড়া হয়েছে

ভাল মানের গাছ বড় করে তুলতে চাইলে টবের মাটি তৈরি করা গুরুত্বপূর্ণ। সে জন্য আমরা মাটি তৈরির সম্পূর্ণ পদ্ধতিটি উপস্থাপন করব।

টবে গাছ লাগানোর জন্য কি রকম মাটি সংগ্রহ করবেন
এমন জায়গা থেকে মাটি সংগ্রহ করুন যেইখানে মাটি সবসময় রোদ পায়।

কারণ রোদ পাওয়া মাটিতে রোগ-জীবাণুর পরিমাণ কম থাকে ফলে রোগ পোকার আক্রমণ কম হয়।

মাটিকে গুড়ো করে নিতে হবে
আপনি যেই মাটি সংগ্রহ করবেন সেটিকে প্রথমে ভালোভাবে গুঁড়ো করে নিতে হবে।

যদি মাটি ভালোভাবে না গুঁড়ো করেন তাহলে সার ভালোভাবে মিশবে না এবং গাছের শিকড় বৃদ্ধি ও ভালো বৃদ্ধি করতে পারবে না তাই ভালোভাবে মাটি গুঁড়ো করে নেওয়া প্রয়োজন।

অপ্রয়োজনীয় পদার্থ মাটি থেকে আলাদা করে দিতে হবে
গুঁরো করে নেওয়ার পর গুঁড়ো করা মাটি চালুনি দিয়ে ভালোভাবে চেলে নিতে হবে।

মাটির সঙ্গে অনেক সময় ইট বা পাথরের টুকরো মিশে থাকে সেগুলো কে বাদ দেবার জন্যই মাটিকে চেলে নেওয়ার প্রয়োজন হয়।

মাটিকে উপযুক্ত করার জন্য প্রয়োজনীয় পদার্থ মেশানো
আমরা সমস্ত উপাদানগুলিকে কয়েকটি ভাগে ভাগ করে মেশাবো।

আপনার বেছে নেওয়া চার ভাগ মাটির সঙ্গে তিন ভাগ পরিমাণে সার মেশাতে হবে।

সেটি যেকোনো সার হতে পারে তা পাতা পচা সার বা গোবর সার বা কঁচো সার।

ওই সার মিশ্রিত মাটির সঙ্গে দুই ভাগ বালি মিশিয়ে দিতে হবে। একভাগ পরিমাণে কোকোপিট মেশাতে হবে।

তিনটি উপাদানকে সামান্য পরিমাণে মেশাতে হবে সেগুলি হল হাড় গুড়ো, সিংকুচি এবং নিম খোল।

হাড় গুঁড়ো ও সিংকুচি মাটিতে ফসফরাস ও ক্যালসিয়াম এর পরিমাণ বৃদ্ধি করে।

মাটিকে জীবাণু মুক্ত রাখার জন্য নিম খোল এর ব্যবহার করা হয়।

সবশেষে রাসায়নিক সার হিসেবে হাফ চামচ D.A.P ও পটাশ মিশিয়ে সমস্ত উপাদানগুলিকে ভালোভাবে মিশিয়ে নিতে হবে।

টবের মধ্যে চারা কিভাবে লাগাবেন
গাছের আকার অনুযায়ী টব নির্বাচন করুন অর্থাৎ ফল গাছের জন্য বড় টব ব্যবহার করতে হবে কিন্তু ফুল জাতীয় গাছ লাগাতে চাইলে ছোট টব ব্যবহার করলেই চলবে।

আপনার নির্বাচন করার টবটির নিচে নুড়ি দিয়ে টবের নিচে ফুটো গুলিকে ঢেকে দিতে হবে।

তার উপর বালি ছড়িয়ে দিতে হবে। যাতে সহজেই টবের মধ্যে বাড়তি জল নিষ্কাশিত হয়ে যেতে পারে।

সার মিশ্রিত মাটিকে টবের মধ্যে ভরতে হবে এবং বীজ থেকে উৎপন্ন চারাটি টবের মাঝখানে বসিয়ে দিতে হবে। সবশেষে জল দিয়ে চারা লাগানোর কাজ সম্পূর্ণ করতে হবে।

টবের মাটিতে বালি ব্যবহারের কারণ কি
সাধারণ মাটি সাধারণত একটু চ্যাটচ্যাটে বা এটেল মাটির মতো হয়ে থাকে।

বেশিরভাগ গাছ সাধারণত দোআঁশ মাটি পছন্দ করে তাই মাটিতে দোআঁশ ভাব আনতে বালি ব্যবহার করা হয়।

তাছাড়া মাটি যদি খুব শক্ত হয় সেই মাটিতে গাছ সহজে শেকড় ছড়াতে পারে না, বায়ু চলাচল করতে পারে না, মাটি থেকে খাবার সংগ্রহ করতে পারে না।

এইসব কারণের জন্য টবের মাটিতে বালির ব্যবহার করা হয়।

কোকোপিট টবের মাটিতে কেন মেশাবেন
কোকোপিট মাটিতে জল ধরে রাখতে পারে অথচ টবের মাটির বা গাছের কোন ক্ষতি হয় না। তাছাড়া মাটিকে হালকা রাখবে।

কোকোপিটের যেহেতু জলকে ধরে রাখতে পারে সেজন্য কয়েকদিন টবে জল না দিলেও গাছ বেঁচে থাকবে।

জৈব সার কেন ব্যবহার করবেন
টবের মাটি তৈরি র ক্ষেত্রে জৈব সার ব্যবহার করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এই জৈব সারই হল গাছের প্রধান খাবার।

জৈব সার থেকেই গাছ তার প্রয়োজনীয় সমস্ত খাদ্য উপাদান গুলিকে গ্রহণ করে।

মাটি কেবলমাত্র গাছের বৃদ্ধি মাধ্যম হিসাবে কাজ করে তাই আমরা মাটি ব্যবহার না করেও কোকোপিট ও জৈব সার ব্যবহার করে গাছ বড় করে তুলতে পারি। তবুও আমাদের টবে গাছ লাগানোর জন্য মাটি ব্যবহার করা উচিত।

ডি.এ.পি কেন ব্যবহার করবেন
গাছ লাগাবার পরপরই আমরা চাই গাছের শিকড় যেন তাড়াতাড়ি বৃদ্ধি হয় যাতে গাছ দ্রুত পুষ্টি সংগ্রহ করে বড় হতে পারে। ডি.এ.পি এই কাজটাই করতে গাছকে সাহায্য করে অর্থাৎ গাছের শিকড় বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে।

সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Error Problem Solved and footer edited { Trust Soft BD }
More News Of This Category
Web Design By Best Web BD